1. admin@nirjatitonewsbd.com : admin :
সোমবার, ১৮ অক্টোবর ২০২১, ১০:২২ অপরাহ্ন

ঘরগুলো ভেঙ্গে পড়েনি, ভেঙে পড়েছে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর স্বপ্নগুলো

  • সময় : সোমবার, ১২ জুলাই, ২০২১
  • ১৯৩ বার পঠিত

নিজস্ব প্রতিবেদক : ঘরগুলো ভেঙ্গে পড়েনি, ভেঙে পড়েছে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর স্বপ্নগুলো। ঘর গুলো দেখে কি মনে করছেন কোন যুদ্ধ বিধ্বস্ত এলাকার? – না মোটেও না! এটা ছিলো বিশ্ব ইতিহাসের এক অনন্য নিদর্শন, রাষ্ট্রের প্রধানমন্ত্রীর নিজ উদ্যোগে ভূমিহীন মানুষের জন্য আশ্রয়ণ প্রকল্প নির্মাণ। যেটা ছিলো জননেত্রী শেখ হাসিনার নিজ অর্থায়নে। কিন্তু অন্তত দুঃখের বিষয় হচ্ছে বছর না যেতেই ঘরগুলো বসবাসের অনুপযোগী হয়ে গেছে। প্রথমত পরিকল্পনার অভাব দ্বিতীয় অতিমাত্রায় দুর্নীতি। এ যেন একদম হরিলুট। ঘরগুলো ভূমিহীন মানুষগুলো পেয়ে যতটা আনন্দিত হয়েছিলো এখন আরো বেশি কষ্ট পাচ্ছে। সত্যিই নিন্দনীয়। “ভূমিহীন মানুষের জন্য আশ্রয়ণ প্রকল্প” একজন স্বপ্নবাজ শেখ হাসিনার স্বপ্নের এই প্রকল্পে যারা অনিয়ম এবং দুর্নীতি করে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার স্বপ্ন ভঙ্গ করেছেন জড়িত সকলের দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তির দাবি জনগণের। সাধারণ মানুষ এগুলো দেখে সহ্য করতে পারছেন না। অভিযুক্তদের ভেতর অধিকাংশই আমলা। অভিযোগ প্রমানিত হলে সকল চোরদের একজনও যেন স্বপদে বহাল না থাকতে পারে। অসভ্য চোরের দলদের শাস্তি হিসেবে চাকরিচ্যুতি, পদচ্যুতি এবং সাথে জেল, জরিমানা হউক ইহা সকলের প্রত্যাশা।

আশ্রয়ণ প্রকল্পের ঘরগুলো সরকারি খাস জমির ওপর তৈরি করা হয়েছে৷ আয়তন ৪০০ বর্গফুট৷  প্রতিটি ঘরে আছে দুইটি কামরা, রান্নাঘর, বারান্দা এবং টয়লেট৷ এছাড়া ১০টি ঘরের জন্য একটি করে গভীর নলকুপ৷ সেমিপাকা এই ঘরগুলোর প্রতিটি তৈরি করতে প্রথম পর্যায়ে খরচ হয়েছে এক  লাখ ৭১ হাজার টাকা৷ দ্বিতীয় পর্যায়ে খরচ হয়েছে এক লাখ ৯০ হাজার টাকা এবং তৃতীয় পর্যায়ে দুই লাখ টাকা৷ প্রতিটি পরিবারকে দুই শতাংশ জমিসহ এই ঘর দেয়া হয়৷

ঘর দেয়ার  আগে ও পরে নানা ধরনের অনিয়মের খবর প্রকাশ হয়৷ যেমন কুড়িগ্রামের রৌমারীতে হস্তান্তরের আগেই পাঁচটি ঘর ধসে পড়ে৷ গোপালগঞ্জে হস্তান্তরের পর অল্প সময়ের মধ্যেই ভেঙে পড়েছে দুইটি ঘর৷ ঘরগুলো বৃষ্টির কারণে বালু সরে গিয়ে ভেঙে পড়ে৷ লালমনিরহাটে ঝড়ো বাতাসে উড়ে গেছে দুইটি ঘর৷ বগুড়ায় দুই দিনের বৃষ্টিতেই  একাধিক ঘর ধসে পড়েছে৷ বগুড়ার শেরপুরে কায়রাখালী বাজারের কাছে খালের পাড়ে নির্মিত ঘরগুলো এখন ভাঙ্গনের সম্মুখীন৷ বরগুনার আমতলীতে নির্মিত ঘরের গুণগত মান ঠিক নেই৷ সুনামগঞ্জের শাল্লায় ডিজাইন বহির্ভূত ঘর নির্মাণের অভিযোগ পাওয়া গেছে৷ প্রত্যক্ষদর্শীরা বলছেন, নিম্নমানের নির্মাণ সামগ্রী ব্যবহার করায় এই অবস্থা৷ আর এগুলো সরকারি ব্যবস্থাপনায়ই নির্মাণ করা হয়েছে৷ আবার এইসব ঘর বরাদ্দের জন্য স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের কেউ কেউ গৃহহীনদের কাছ থেকে অর্থ নিয়েছেন বলে অভিযোগ আছে৷

প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় এ পর্যন্ত ২২ জেলার ৩৬ উপজেলায় ঘর তৈরিতে অনিয়মের অভিযোগের প্রমাণ পেয়েছে৷ আরো অভিযোগের তদন্ত হচ্ছে ৷ অনিয়মের অভিযোগে সিরাজগঞ্জের কাজীপুরে সাবেক ইউএনও (বর্তমানে উপসচিব) শফিকুল ইসলাম, বগুড়ার শেরপুরের সাবেক ইউএনও মো. লিয়াকত আলী শেখ (বর্তমানে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক), মুন্সীগঞ্জ সদরের সাবেক ইউএনও রুবায়েত হায়াত, বরগুনার আমতলীর ইউএনও মো. আসাদুজ্জামান ও মুন্সীগঞ্জ সদরের সহকারী কমিশনার (ভূমি) শেখ মেজবাহ-উল-সাবেরিনকে ওএসডি করা হয়েছে৷

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও খবর

পুরাতন খবর

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০৩১  
© All rights reserved © 2021 Nirjatio News BD
Theme Customized By Theme Park BD